বুধবার, ২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১৫ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, সকাল ৬:৩৯

সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত দুইজন।

ডেইলি ক্রাইম বার্তা ডেস্ক : নসিমন ও সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষে পাবনার ঈশ্বরদীতে সিএনজির দুই যাত্রী নিহত ও অপর ৪ জন গুরুতর আহত হয়েছেন।
রবিবার (৯ জানুয়ারি) রাত সাড়ে ৮টার দিকে পাবনা-ঈশ্বরদী মহাসড়কের ঈশ্বরদীর দাশুড়িয়া ইউনিয়নের দিকশাইল মোড়ে এই দুর্ঘটনা ঘটে।
নিহতরা হলেন- বাবলু (২৫) নাটোর বড়াইগ্রামের শিবপুরগ্রামের মোতালেব হোসেনের ছেলে। নিহত অপরজনের চেহারা বিভৎস্য হওয়ায় পরিচয় শনাক্ত করা যায়নি।
আহতরা হলেন, নাটোর বড়াইগ্রামের গড়মাটি এলাকার মনসের মিস্ত্রির ছেলে শাহিন (২৭), একই এলাকার আমিন প্রামানিকের ছেলে মহররম প্রাং (৫০), পাবনা ঈশ্বরদী পৌরসভার আমবাগান এলাকার জোসনা খাতুনের মা ডলি বেগম (৬০) ও একই এলাকার মৃত হামিদের স্ত্রী আনোয়ারা বেগম (৬০)।
প্রত্যক্ষদর্শী পল্লী চিকিৎসক তফিজ উদ্দিনসহ স্থানীয়রা জানান, ঘটনার সময় পাবনার দিক থেকে যাত্রী নিয়ে সিএনজিটি দাশুড়িয়ার দিকে আসতে ছিল। আর দাশুড়িয়ার দিক থেকে শ্যালোর ইঞ্জিনচালিত বড় নসিমন গাড়ি দ্রুতগতিতে পাবনার দিকে যাচ্ছিল। এ সময় ঘটনাস্থল দাশুড়িয়ার দিকশাইল মোড়ে সিএনজি ও নসিমনের মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটে। এতে ঘটনাস্থলেই দুজনের মৃত্যু হয়। আর আহতদের ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স সদস্যরা উদ্ধার করে ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।
ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দায়িত্বরত চিকিৎসক মশিউর রহমান জানান, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সদস্যরা আহত শাহিন, মহররম, ডলি ও আনোয়ারা বেগমকে গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে আসেন। কিন্তু শাহিন ও ডলি বেগমের অবস্থা মারাত্মক হওয়ায় রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, মহররমকে পাবনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল প্রেরণ করা হয়েছে। আর আনোয়ারাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রাখা হয়েছে।
পাকশী হাইওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জনাব, মো. রেজাউল বাসার জানান, পাবনা থেকে সিএনজিটি যাত্রী নিয়ে দাশুড়িয়ার দিকে আসতে ছিল। আর নসিমনটি দাশুড়িয়ার দিক থেকে পাবনার দিকে যাওয়ার সময় ঘটনাস্থলে মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটে। এতে ঘটনাস্থলেই দুজনের মৃত্যু হয়। ঘটনাস্থল থেকে নিহত দুজনের মরদেহ উদ্ধার করে থানায় আনা হয়েছে।
আহতদের হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে দুর্ঘটনাকবলিত সিএনজি ও নসিমনকে জব্দ করে থানা আনা হয়েছে।