শনিবার, ১৩ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ২৯শে চৈত্র, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, রাত ৩:০৫

আর্থিক সমস্যার কারনে মা’কে নিয়ে আসতে পারছে না অসহায় ছেলে।

ডেইলি ক্রাইম বার্তা ডেস্ক : হারিয়ে যাওয়া মা’কে খুঁজে পেয়েছেন দীর্ঘ ৮/৯ মাস পরে তার ছেলে কিন্তু আর্থিক সমস্যার কারনে মা’কে আনতে পারছে না অসহায় ছেলে ফিরোজ।
পটুয়াখালীর বাউফলে হারিয়ে যাওয়ার প্রায় ৮/৯ মাস পরে মায়ের খোঁজ পেয়েও আর্থিক সমস্যার কারণে বাড়িতে নিয়ে আসতে পারছেন না অসহায় ছেলে মো. ফিরোজ (৫০)। ফিরোজ বাউফল উপজেলার মদনপুরা ইউনিয়নের দ্বিপাশা গ্রামের মৃত মোঃ মজিদ হাওলাদারের ছেলে।
ফিরোজের ভাষ্য মতে তার মা আমেনা বেগম (৭০) মানসিক ভাবে অসুস্থ, গত জানুয়ারী (২০২১) তার মা আমেনা বেগম (৭০) গলাচিপার চর বিশ্বাস তার বোনের বাড়িতে বেড়াতে যান। কয়েকদিন পর সেখান থেকেই নিখোঁজ হন তার মা। অনেক খোজাঁখুজির পরেও কোনোভাবে সন্ধান মিলছিলোনা তার মায়ের।
হঠাৎ মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বাউফল উপজেলার এক সাংবাদিকের ফেসবুকের পোস্টের মাধ্যমে তিনি জানতে পারেন তার মা গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রয়েছেন। মায়ের খোঁজ পাওয়ার পরেই মায়ের কাছে যাওয়ার জন্য বেকুল হয়ে উঠেন ফিরোজ। তবে ভাগ্য যে তার বিপরীতে, পেশায় ফিরোজ একজন দিন মজুর।মানুষের সাথে কাজকর্ম করেই কোনো ভাবে পরিচালনা করেন তার সংসার। কাজ না পেলে ভিক্ষাই হয় তার একমাত্র ভরসা। এই অবস্থায় গৌরনদী গিয়ে মাকে ফিরিয়ে আনার মতো কোন সামর্থই নেই তার।
কান্না জড়িত কন্ঠে ফিরোজ বলেন “দীর্ঘদিন পর মায়ের খোঁজ পেয়েছি কিন্তু গৌরনদী গিয়ে মাকে বাড়িতে ফিরিয়ে আনার মত সামর্থ্য আমার নাই। আমি খুব গরিব মানুষ। কাজ না পাইলে ভিক্ষা করে সংসার চালাই। আমার কাছে বিশ কেনার মত টাকাও নাই, যদি থাকতো তাইলে বিশ খাইয়া মইরা যাইতাম। আপনারা যদি আমারে একটু সাহায্য-সহযোগিতা করতেন তাহলে আমি আমার মাকে আমার কাছে নিয়ে আসতে পারতাম।
সাহায্যের জন্য ফিরোজের মোবাইল নম্বর- ০১৭৮৩-৩০৪৯৭৯
“এম.সাইদুর রহমান সংবাদদাতা বাউফল”