শুক্রবার, ১৯শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, বিকাল ৫:৪৩

ওসির নির্দেশনায় ময়লা–আবর্জনার স্তুপ হয়ে গেল সুন্দর আর ঝকঝকে।

ডেইলি ক্রাইম বার্তা ডেস্ক : সমগ্র বাজার এলাকায়
ময়লা আবর্জনা ও ড্রেনের নোংরা আবর্জনার স্তূপ জমে থাকা একটি নিত্যদিনের ব্যাপার ছিল আর এই ঘটনা খাগড়াছড়ি জেলার সীমান্তবর্তী পানছড়ি উপজেলার। আর সেই ময়লাযুক্ত দুর্গন্ধকে সাথে নিয়ে চলাচল করতো হতো পানছড়ি বাজারের ব্যবসায়ীবৃন্দ সহ পথচারীদের। বাজারের আনাচে কানাচে ছিল নোংরা ও দুর্গন্ধময়। পাশ দিয়ে চলার সময় নাকে রুমাল দিয়ে চলতে হতো পথচারীদের। ময়লার ভাগাড় পরিষ্কার করে সেখানে দুর্গন্ধমুক্ত রাখার উদ্যোগ দেখা যায় নি কারো মাঝে।
এই বিব্রতকর ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশের সমাপ্তি ঘটলো সদ্য যোগদান করা পানছড়ি থানার নবাগত অফিসার ইনচার্জ জনাব, আনচারুল করিম এর নির্দেশনায়। গত ১ সেপ্টেম্বর তিনি বাজার পরিদর্শন করলে বাজারের সার্বিক পরিস্থিতি দেখে রিতীমত হতবাক হন।
পরবর্তীতে তিনি বাজার কমিটির সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক সহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দের সাথে বসে আলোচনা করেন এবং নির্দেশনা দেন। প্রতি দোকানদার থেকে ব্যবসায়ী অনুযায়ী নির্ধারিত অর্থ তুলে পরিষ্কার করা।
সাত দিনের মাথায় বাজারের আশেপাশের সবকিছু ও ময়লাযুক্ত ড্রেন এখন সুন্দর ও ঝকঝকে হয়ে উঠেছে।আরও কিছু কিছু জায়গায় পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার কাজ বাকী রয়েছে যা দুই একদিনের মধ্যে শেষ হবে বলে জানিয়েছেন বাজার কমিটির নেতৃবৃন্দরা।
পানছড়ি বাজার পরিস্কার পরিচ্ছন্নতার চলমান কাজ পরিদর্শনে আসেন থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জনাব, আনচারুল করিম। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন,খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য বাহার মিয়া, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বিজয় কুমার দেব, বাজার পরিচালনা কমিটির উপদেষ্টা তপন কান্তি বৈদ্য, উপজেলা আওয়ামী লীগের কৃষি বিষয়ক সম্পাদক কাজল দে, বাজার পরিচালনা কমিটির সদস্য মো. ইউসুফ ও সঞ্জিত দেবনাথসহ প্রমুখ।
পানছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ( ওসি) জনাব, আনচারুল করিম বলেন,পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা একটি বাজারের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে। সৌন্দর্য বর্ধিত স্থান মানুষের চিন্তা চেতনা ও মনকে প্রভাব ফেলে। একটি সুন্দর পরিবেশ সবারই কাম্য। প্রত্যেকে প্রত্যেকের অবস্থা থেকে সহযোগিতা করলে বাজারের আশেপাশে সবকিছু পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা সম্ভব। বাজার পরিস্কার পরিচ্ছন্নতার কাজে যারা সহযোগিতা করেছেন সেই সকল ব্যাবসায়ী ও সংশ্লিষ্টদের আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছি।
পানছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক বিজয় কুমার দেব বলেন, বাজার দোকানিদের ফেলা ময়লা আবর্জনা পরিবেশ দূষণে দুর্বিসহ জনজীবন ছিল এতোদিন। এর ফলে নানা ধরনের রোগ বালাই জন্ম নিত। বৃষ্টির কারণে মশা ও মাছির উপদ্রব বেড়ে যেত। যত্রতত্র ময়লা আবর্জনা ফেলার কারণে যেমন ক্ষতি হয় পরিবেশের তেমনি মানুষের ক্ষতির সম্মুখীন হতে হচ্ছে। পানছড়ি থানার ওসি মহোদয়কে ধন্যবাদ জানাচ্ছি বাজারে দীর্ঘ দিনের সমস্যাকে সমাধান করার জন্য।
পানছড়ি বাজার কমিটির সদস্য ইউসুফ বলেন, ওসি স্যারকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। স্যার বাজারের এই সমস্যার সমাধান করে একটি সুন্দর পরিবেশ সৃষ্টি করার জন্য।
“মোঃ চাঁন মিয়া সংবাদদাতা পানছড়ি (খাগড়াছড়ি)”