রবিবার, ২৬শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, সকাল ৮:২৯

খাল উন্মুক্ত করার দাবীতে মির্জাগঞ্জ এলাকাবাসীর মানববন্ধন।

ডেইলি ক্রাইম বার্তা ডেস্ক : বেগমপুর বাঁধঘাট থেকে চতরা বকশী স্লুইসগেট পর্যন্ত খালের ইজারা বাতিল করে জলাবদ্ধতা নিরসন এবং দেশীয় মাছ উৎপাদনের লক্ষ্যে উন্মুক্ত করে দেওয়ার দাবিতে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী আর এই ঘটনা পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ উপজেলার দেউলী সুবিদখালী ইউনিয়নের।
মঙ্গলবার( ৮ জুন) সকাল ১০ টায় পশ্চিম সুবিদখালী এলাকার দঃ পঃ সুবিদখালী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় (বড়বাড়ী) সংলগ্ন
খালের পাড়ের সড়কে তিন শতাধীক মানুষের উপস্থিতিতে হাতে “দখল মুক্ত খাল চাই ” প্লেকার্ড নিয়ে ” দাড়িয়ে থেকে এ মানববন্ধনের বেশ কিছু চিত্র দেখা জায়।
মানববন্ধনে এলাকাবাসীর পক্ষে বক্তব্য রাখেন, মোঃ হানিফ হাং, মোঃ সাহেব আলী হাং, রাজ্জাক মল্লিক, বজলুর রহমান মৃধা ও মোঃ রুহুল আমীন হাং প্রমুখ।
এসময় বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, বেগমপুর ও বকশী খাল বিগত ৫ বছর যাবৎ একটি প্রভাবশালীরা ইজারার নামে এলাকাবাসীদের কোন প্রকার মাছ ধরতে দিচ্ছে না। তারা স্থানীয় শক্তির প্রভাব খাটিয়ে অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে আসছে এবং নির্বিচারে মৎস্য আহরণ করছে। কোন সাধারন মানুষ মাছ ধরতে নামলে তাদেরকে বিশ্রী ভাষায় গালমন্দ করে এবং আমরা এলাকার সাধারন জনগন তাদের ভয়ে কোন প্রকার মাছ ধরার সুযোগ পাচ্ছি না। এমতাবস্থায় আমরা অসহায় হয়ে মাছ ধরার জন্য ওই খাল উন্মুক্ত করার দাবিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এর কাছে গত ১৮ই মে একটি লিখিত অভিযোগ করেছি। কিন্তু এখন পর্যন্ত উপজেলা প্রশাসন কোন পদক্ষেপ নেয়নি।
অবিলম্বে বেগমপুর ও বকশী খালের ইজারা বাতিল করে সাধারণ জনগণের মাছ ধরার জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়ার দাবি জানান তারা।
এ বিষয়ে সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা জনাব, মোঃ তাঞ্জিমুল ইসলাম বলেন, একটি অভিযোগ পেয়েছি তার তদন্ত চলমান আছে। ইউএনও স্যারের সাথে আলাপ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোসাঃ তানিয়া ফেরদৌস অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, অভিযোগটি তদন্তের জন্য মৎস্য কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন পেলেই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।