শনিবার, ২০শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৬ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, রাত ১২:০১

কিশোর গ্যাংয়ের দুই পক্ষের সংঘর্ষ।

ডেইলি ক্রাইম বার্তা ডেস্ক : ঝড়ে পড়েছে অনন্ত নামে চৌদ্দ বছরের এক কিশোর
এবং কিশোর গ্যাংয়ের বিরোধে এই ঘটনা। নৃশংস এ হত্যাকাণ্ডটি ঘটেছে সোমবার শবে বরাতের রাত সাড়ে ১১টার দিকে পুরান ঢাকার সূত্রাপুরের লালকুঠি এলাকায়।
ঘটনার পর তার মরদেহ পুলিশ উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের লাশঘরে রেখেছে। এ ঘটনায় আহত আরও দুজন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তারা হলো সাজু ও সোহেল।
হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সাজু জানায়, স্থানীয় মিল ব্যারাক এলাকার দুজন চিহ্নিত সন্ত্রাসীর আশ্রয়ে একটি দল সক্রিয় রয়েছে। কয়েক দিন আগে এই দলের সঙ্গে অনন্ত ও তার বন্ধুদের ঝগড়া হয়। গতকাল রাত সাড়ে ১০টার দিকে মিল ব্যারাক লালকুঠি ঘাটে দুটি দলের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়া ও এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাতের ঘটনা ঘটে। অনন্তের পেটে একাধিক ছুরিকাঘাত করে বিরোধী পক্ষ। এতে সে জ্ঞান হারায়। পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
অনন্ত স্থানীয় জুবলী স্কুলের নবম শ্রেণির ছাত্র ছিল। দুই ভাইয়ের মধ্যে অনন্ত ছোট। পরিবারের সঙ্গে মিল ব্যারাকে কাজীটোলায় থাকত সে। অনন্তর বাবা বাংলাবাজারের একটি দোকানের কর্মী।
ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির সহকারী ইনচার্জ (এএসআই) আব্দুল খান মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, অনন্তর লাশ মর্গে রাখা হয়েছে। তার পেটে একটি ছুরিকাঘাত রয়েছে। আর সাজুর পিঠে একটি ছুরিকাঘাত রয়েছে। তাকে জরুরি বিভাগে ভর্তি রাখা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য অনন্তর বন্ধু সারোয়ার সহ আরও একজনকে পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে।