শনিবার, ১৩ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩০শে চৈত্র, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, রাত ১০:১৪

টিকটক স্টার হতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার।

ডেইলি ক্রাইম বার্তা ডেস্ক : টিকটকে কাজ করা কথা বলে সপ্তম শ্রেণির (১৩) এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে দুজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে আর এই ঘটনা গাজীপুরে। শনিবার ঢাকা থেকে শিশির (১৯) ও জুনায়েদ (১৯) নামে দুই তরুণকে গ্রেফতার করে পুলিশ।
এই ঘটনায় শনিবার বিকেলে টঙ্গী পূর্ব থানায় একটি মামলা করেছে ওই কিশোরীর পরিবার। স্বজনদের বরাত দিয়ে টঙ্গী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. জিয়াউর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
তিনি বলেন, ওই কিশোরীর বাড়ি গাজীপুরে। গত ২৩ ডিসেম্বর সে বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়। পরদিন টঙ্গী পূর্ব থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করে তার পরিবার। শনিবার অভিযান চালিয়ে রাজধানীর হাতিরঝিল এলাকা থেকে মেয়েটিকে উদ্ধার করে পুলিশ।
এসআই জিয়াউর রহমান বলেন, সপ্তম শ্রেণি পড়ুয়া ওই কিশোরীর মোবাইলে আসক্তি ছিল। তার মোবাইলে টিকটক বানানোর শখ। সেখান থেকে ফেসবুকে কয়েকজনের সঙ্গে তার বন্ধুত্ব ও পরিচয়। তাকে ‌‘টিকটক স্টার’ বানানো হবে, এমন কথা বলে বাড়ি থেকে বের করে নেয় ওই বন্ধুরা। এরপর তাকে একটি নির্জন জায়গায় নিয়ে ধর্ষণ করা হয়। সেখানে টানা তিন দিন আটকে রেখে পাশবিক নির্যাতন চালায় তারা।
মেয়েটির স্বজনরা জানান, গত ২৩ ডিসেম্বর বিকালে নানার বাড়ি বেড়াতে যাওয়ার কথা বলে বাসা থেকে বের হয় মেয়েটি। এরপর সন্ধ্যা হয়ে গেলেও সে না ফেরায় অনেক খোঁজাখুঁজি করা হয়। পরে আর তাকে পাওয়া যাচ্ছিল না।
স্বজনদের বরাত দিয়ে টঙ্গী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আমিনুল ইসলাম জানান, থানায় জিডি হওয়ার পর তিন দিনের মধ্যে মেয়েটিকে উদ্ধার করেছে টঙ্গী পূর্ব থানার পুলিশ। মেয়েটি বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) চিকিৎসাধীন রয়েছে। এই ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।
ভুক্তভোগী কিশোরীর বরাত দিয়ে এসআই জিয়াউর রহমান বলেন, তাকে টিকটক স্টার বানানোর প্রলোভন দেখিয়ে ঢাকার গেন্ডারিয়া এলাকায় নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর সেখানে একটি কক্ষে আটকে রেখে শিশির, শাওন ও জুনায়েদসহ অজ্ঞাত আরও একজন তাকে ধর্ষণ করে। মেয়েটির দেয়া তথ্য অনুযায়ী শিশির ও জুনায়েদকে ঢাকার ওয়ারী থানা এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে।