মঙ্গলবার, ১৮ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, দুপুর ১২:৪৯

পরিবারের সবাইকে গলা কেটে হত্যার কারণে আরও তিনজন গ্রেপ্তার।

ডেইলি ক্রাইম বার্তা ডেস্ক : গতকাল মঙ্গলবার রাতে আরও তিনজন গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। আজ বুধবার তাদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১০ দিনের রিমান্ড চাইবে সিআইডি। সাতক্ষীরার কলারোয়ায় একই পরিবারের চারজনকে গলাকেটে হত্যার ঘটনায় তাদের গ্রেপ্তার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।
গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- কলারোয়া উপজেলার খলসি গ্রামের আব্দুস সামাদের ছেলে আব্দুর রাজ্জাক (২৮), আবুল কাশেমের ছেলে আব্দুল মালেক (৩৫) ও একই গ্রামের আসাদুল ইসলাম (২৭)। এদের মধ্যে রাজ্জাক ও মালেক নিহত শাহিনুর রহমানের প্রতিবেশী এবং আসাদুল নিহত শাহিনুরের হ্যাচারির কর্মচারী বলে জানা গেছে। মালেক পুলিশের সোর্স হিসেবেও কাজ করেন।
সাতক্ষীরা সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার আনিচুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, গতকাল রাতে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। আজ তাদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১০ দিন করে রিমান্ড আবেদন করা হবে।
কলারোয়া আদালতের পুলিশ উপপরিদর্শক (এসআই) কায়েস মাহমুদ জানান, আসামিদের আদালতে পাঠানোর প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, রিমান্ডে নেওয়া রায়হানুলের জবানবন্দি অনুযায়ী এই তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
গত ১৫ অক্টোবর ভোর রাতে কলারোয়া উপজেলার হেলাতলা ইউনিয়নের খলসি গ্রামের শাহাজান আলীর ছেলে হ্যাচারি মালিক শাহিনুর রহমান (৪০), তার স্ত্রী সাবিনা খাতুন (৩০), ছেলে সিয়াম হোসেন মাহী (৯) ও মেয়ে তাসনিম সুলতানাকে (৬) গলা কেটে হত্যা করা হয়। তবে ভাগ্যক্রমে বেঁচে যায় তাদের চার মাস বয়সী শিশু কন্যা মারিয়া সুলতানা।
এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় নিহত শাহিনুরের ভাই রায়হানুল ইসলামসহ এখন পর্যন্ত চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে সিআইডি।
উল্লেখ্য, গত বুধবার গভীর রাতে উপজেলার হেলাতলা ইউনিয়নের খলসি গ্রামে ঘরে ঢুকে এক দম্পতি ও তাদের দুই শিশু সন্তানকে গলা কেটে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। নিহতরা হলেন- খলসি গ্রামের মৃত শাহাজান আলীর ছেলে হ্যাচারি মালিক মাছ ব্যবসায়ী শাহিনুর রহমান (৩৭), শাহিনুরের স্ত্রী সাবিনা খাতুন (৩০), ছেলে সিয়াম হোসেন মাহি (১০) ও মেয়ে তাসনিম (৮)।