সোমবার, ১৫ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩১শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, দুপুর ২:১৫

এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণ।

ডেইলি ক্রাইম বার্তা ডেস্ক : ঘর থেকে তুলে নিয়ে এক মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে আর এই ঘটনা নেত্রকোনার বারহাট্টা উপজেলায়। এ ঘটনায় মোজাহিদ ইসলাম (২৩) নামে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। রবিবার সকাল ৯টার দিকে উপজেলার অতিথিপুর বাজারের কম্পিউটার দোকান থেকে তাকে আটক করা হয়।
আটক মোজাহিদ বারহাট্টা উপজেলার ইসলামপুর গ্রামের শফিকুল ইসলামের ছেলে। অতিথিপুর বাজারে তার একটি কম্পিউটারের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে।
পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ওই মাদ্রাসাছাত্রী (১২) তার ছয় বছরের ছোটভাইকে নিয়ে শনিবার রাতে ঘুমিয়ে ছিলো। অভিযুক্ত মোজাহিদ মাঝরাতে অভিনব কায়দায় বাহির থেকে ঘরের দরজা খুলে তাকে তুলে নিয়ে যায়। পরে অতিথিপুর রেলস্টেশনের সন্নিকটে ইসলামপুর বিলে নিয়ে গিয়ে তাকে ধর্ষণ করে ফেলে রেখে যায়।
ওই ছাত্রীর মা রাত ৩টার দিকে ঘর থেকে বের হয়ে মেয়ের ঘরের দরজা খোলা পান। মেয়েকে কোথাও দেখতে না পেয়ে তিনি পরিবারের অন্য সদস্যদের বিষয়টি জানান। পরিবারের লোকজন চারদিকে খোঁজাখুঁজির একপর্যায়ে ভোর ৫টার দিকে তাকে ইসলামপুর বিল থেকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করেন।
পরে সকালে বিষয়টি বারহাট্টা থানা পুলিশকে জানালে পুলিশ সকাল ৯টার দিকে অতিথিপুর বাজারের কম্পিউটার দোকানে অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত মোজাহিদকে আটক করে। পরে পুলিশ ওই ছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠায়।
নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. টিটু রায় জানান, গাইনি বিভাগের কনসালটেন্ট ভিকটিমের ডাক্তারি পরীক্ষা ও প্রয়োজনীয় নমুনা সংগ্রহ করবেন।
বারহাট্টা থানার ওসি জনাব, মিজানুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ অভিযুক্ত মোজাহিদের কম্পিউটারের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালিয়ে ঘুমন্ত অবস্থায় তিনজনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে মূল অভিযুক্তকে থানা হেফাজতে রেখে বাকি দুজনকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।