রবিবার, ২৬শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, সকাল ৯:০৮

রেকর্ড পরিমাণে কমল সোনার দাম।

ডেইলি ক্রাইম বার্তা ডেস্ক : দেশের বাজারে আবারও কমল স্বর্ণের দাম। বিশ্ববাজারে দরপতন হওয়ায় প্রতি ভরি স্বর্ণে প্রায় দেড় হাজার টাকা কমিয়ে মূল্যবান এ ধাতুটির নতুন দাম নির্ধারণ করেছে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি (বাজুস)। স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের সংগঠন বাজুস এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। স্বর্ণের এ নতুন দর কার্যকর হয়েছে। বাজুস সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার আগারওয়ালা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। বাজুস জানিয়েছে, সারাদেশে কার্যকর করা হয়েছে নতুন দাম। এর আগে চলতি মাসের ১৩ তারিখে প্রতিভরি ২২ ক্যারেট সোনার দাম ৩ হাজার ৫০০ টাকা কমিয়ে করা হয় ৭৩ হাজার ৭১৬ টাকা। আন্তর্জাতিক বাজারে স্বর্ণের দাম বৃদ্ধির সাথে সাথে গত কয়েক মাসে দফায় দফায় বেড়ে খাটি সোনার ভরি ৭৮ হাজার টাকা ছাড়ায়।গত প্রায় তিন সপ্তাহ ধরে বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দাম নিম্নমুখী হওয়ায় দেশের বাজারে দাম কামনো হচ্ছে বলে জানায় বাজুস। নতুন তালিকা অনুযায়ী, ২১ ক্যারেট সোনার ভরি পড়বে ৬৯ হাজার ১০০ টাকা। ১৮ ক্যারেট মানের সোনার ভরি ৬০ হাজার ৩৬১ টাকা, সনাতনী সোনার প্রতিভরির নতুন দাম ৫০ হাজার ৪০ টাকা। রূপা বিক্রি হবে আগে দামেই ৯৩৩ টাকা ভরি। খাত সংশ্লিষ্টরা জানান, বাংলাদেশের বাজারে কী দামে স্বর্ণ বিক্রি হবে তা নির্ধারণ করে বাজুস। বিশ্ববাজারে দাম বাড়া-কমার ওপর নির্ভর করে এর দাম নির্ধারণ করা হয়। সাধারণত বিশ্ববাজারের সাতদিনের দামের গড় ভিত্তিতে কী পরিমাণ দাম বাড়বে না কমবে সে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। উল্লেখ্য, চলতি বছরের প্রথম প্রায় আট মাস দাম ওঠানামার মধ্যে বেশ অস্থির সময় পার করেছে দেশের সোনার বাজার। আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে সমন্বয় করে মোট ৭ বার বাড়ানো হয় সোনার দাম। এর মধ্যে টানা ৪ বার বাড়ে মূল্যবান এই ধাতুর দাম। আর দামের বিশ্ববাজারের সঙ্গে সমন্বয় করে তিনবার কমানো হল সোনার দাম।অর্থাৎ ৫ জানুয়ারি থেকে ২১ আগস্ট পর্যন্ত ১০ বার সোনার বাজার দর ঠিক
করে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি বাজুস। তবে, দেশের ব্যবসায়ীরা একবারও হাত দেয়নি রূপাতে। অর্থাৎ সাড়ে ৭ মাসে দাম ওঠানামায় বাজারে সোনা অস্থিরতা দেখালেও মূল্যবান এই ধাতুর পাশে নিরব থেকেছে রূপা।