বুধবার, ১৯শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৬ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, রাত ১২:১৯

সম্পাদক জি.ডি করেছেন, বাংলাদেশ বার্তা পত্রিকার নামে অপপ্রচারকারীদের বিরুদ্দে।

ডেইলি ক্রাইম বার্তা ডেস্ক : অপ-প্রচারে লিপ্ত হয়েছে এক কুচক্রী মহল স্বনামধন্য পত্রিকা বাংলাদেশ বার্তা’র নামে। গত ৬ই জুলাই থেকে দুটি ফেসবুক আইডি থেকে বাংলাদেশ বার্তা পত্রিকা ও পত্রিকার সম্পাদক, বিভাগ প্রধান’কে উদ্দেশ্য করা হচ্ছে মানহানীমূলক পোস্ট যা ইতিমধ্যে বাংলাদেশ বার্তা পরিবারের মাধ্যমে প্রশাসনের নজরে এসেছে।
বর্তমান আইনে আইসিটি আইনের আওতায় আসে এমন কিছু পোস্টও করা হয়েছে উক্ত আইডি থেকে যার স্ক্রিনশট সংগ্রহ করেছে বাংলাদেশ বার্তা কর্তৃপক্ষ।
বাংলাদেশ বার্তা সম্পাদক এ বিষয়ে বলেন, ‘আমি মোঃ হৃদয় হাসান চৌধুরী, সাপ্তাহিক বাংলাদেশ বার্তা পত্রিকার প্রকাশক ও সম্পাদক। উক্ত পত্রিকা দেশের জাতীয় ও তৃনমুল পর্যায়ের সাংবাদিকদের নিয়ে দেশে ঘটে যাওয়া বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রকাশ করার লক্ষ্যে ২০১৯ সালের জুন থেকে ২০২০ সালের সেপ্টেম্বর অবধি ঢাকার ফকিরাপুল ১নং গলির প্রিন্টিং প্রেস হতে বেশ কিছু সংখ্যা সম্পাদনা ও প্রকাশ করেছি যার ডিক্লেয়ারেশন নাম্বার ডিএ-৭১৬৩, অনিয়মিত ধারাবাহিকহীনভাবে প্রকাশ বা ভিন্ন কারনবশত এ পত্রিকার নাম তথ্য মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত না হওয়ায় আমি গত ২০২০ সালের এর সেপ্টেম্বর থেকে পত্রিকাটি আর প্রকাশ করিনি এবং সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম বাংলাদেশ বার্তা’কে সাপ্তাহিক নয় দৈনিক আমার বাংলাদেশ বার্তা হিসেবে ডিক্লেয়ারেশন নিয়ে প্রকাশ করবো করোনা পরিস্থিতি অ-স্বাভাবিক হয়ে পড়ায় আর সেই পক্রিয়াটি এখনো করা হয়ে উঠেনি।
কিন্তু বেশ কিছু দিন আগে আমি আমার একজন প্রতিনিধি মারফত জানতে পারি দুজন ব্যক্তি তাদের ব্যক্তিগত ফেসবুক আইডিতে ব্যক্তিগত আক্রোশের কারণে আমার পত্রিকা ও অনলাইন নিউজ পোর্টাল (www.bangladeshbarta.tv/বাংলাদেশ বার্তা টেলিভিশন) কে নিয়ে আজেবাজে মন্তব্য ও অপপ্রচার করছে যা আইন বহির্ভূত।
সেই দুজন ব্যক্তির সাথে মোবাইলে ও ফেসবুকে আমার কয়েকজন প্রতিনিধি সেই নোংরা কর্মকান্ডের প্রতিবাদ জানানোর চেষ্টা করলে তাদেরকে মেসেজ, কমেন্ট ও ফোনকল এ খারাপ আচরণ এবং হুমকি প্রদান করা হয় বলেও আমি জানতে পেরেছি।
তাই আমি আজ বাধ্য হয়ে প্রশাসনের স্মরণাপন্ন হয়েছি। লকডাউনে অবস্থানগত কারনে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় উক্ত বিষয়ে একটি সাধারণ ডায়েরি (জি.ডি) করেছি। যাহার নং- ২৮৭।
সেই সাথে আমি জড়িত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইসিটি ও প্রচলিত ধারার আইনে প্রমান সাপেক্ষে মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছি।