শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১০ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, রাত ৩:১১

এক রাতে বাউফলে ৬ টি গরু চুরি।

ডেইলি ক্রাইম বার্তা ডেস্ক : ৬টি গরু চুরির ঘটনা ঘটেছে এক রাতেই পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলায়। (৯ মার্চ) বুধবার দিবাগত রাতে উপজেলার কাছিপাড়া ইউনিয়নের পশ্চিম কাছিপাড়া এলাকার মো. আইয়ুব আলী খান ও মো. আনোয়ার হোসেন খান (সাবেক ইউপি সদস্য) গোয়ালঘর থেকে এ চুরির ঘটনা ঘটে। আইয়ুব আলী খানের ৪টি ও আনোয়ার হোসেন খানের ২টি গরু চুরি হয়। চুরি হওয়া গরুগুলোর মূল্য প্রায় সাড়ে ৩ লাখ টাকা বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা।
ভুক্তভোগী ও এলাকার সুত্রে যানা যায়, প্রতিদিনের মতো বুধবার রাতে ঘুমানোর আগে গরুগুলো গোয়ালঘরে বেঁধে রেখে যান। রাত আনুমানিক ২টার দিকে আইয়ুব আলীর ছোট বাচ্চা ঘুম থেকে উঠে যায় এবং (আইয়ুব আলী) তিনিও ঘুম থেকে উঠে বাচ্চাকে ঘুম পড়িয়ে টর্চ লাইট নিয়ে গোয়াল ঘরের দিকে যায়। গোয়াল ঘরে টর্চ লাইট দিয়ে দেখে তার ৪টি গরুর মধ্যে শুধু ১টি বাছুর দেখতে পান। পরে আশেপাশের বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি করেও গরুর সন্ধান না পেয়ে চিৎকার শুরু করলে আশেপাশের লোকজন জড়োয়া হয়। আবার পাশের বাড়ির আনোয়ার হোসেন খানের গোয়াল ঘরে আনোয়ার হোসেন খানের রাখা গরু ২টি না দেখে তিনিও হতাশ হয়ে পরেন।
এ বিষয়ে ভুক্তভোগী কৃষক আইয়ুব আলী খান বলেন, গরু মোটাতাজাকরণ ও সামান্য জমি চাষ করে আমার সংসার চলত এবং গাভীর দুধ বিক্রি করে সংসারের বাজার-সদায় ক্রয় করি।গ্রামীন ব্যাংক ও আশা থেকে লোন নিয়ে অনেক কষ্ট করে গরুগুলো লালনপালন করে আসছি। গতকাল রাতে চোরেরা আমার ৪টি গরু চুরি করে নিয়ে যায়। গরুগুলো হারিয়ে আমি এখন নিঃস্ব হয়ে গেছি। আমার মৃত্যু বরন ছাড়া এখন আর কোন উপায় নেই।
অন্য এক ভুক্তভোগী আনোয়ার হোসেন বলেন, আমার মাত্র দুইটা গরুই ছিল। দুটোই চোরে নিয়ে গেল। আমার প্রায় এক লক্ষ বিশ হাজার টাকার ক্ষতি হয়েছে।
এ ব্যাপারে বাউফল থানার ওসি জনাব, আল-মামুন বলেন, সংবাদ পেয়েই ঘটনাস্থল পুলিশ পাঠানো হয়েছে। চুরি হওয়া ঘটনাস্থল পুলিশ পরিদর্শন করেছে। তবে ভুক্তভোগী কেউই লিখিত অভিযোগ দেয়নি। লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যাবস্থা নিবো।
“এম.সাইদুর রহমান সংবাদদাতা বাউফল”